Skip navigation (access key S)

Access Keys:

আমার সাইট ভিজিট গোপন রাখুন

এখুনি কারুর সাথে কথা বলতে চান?

  • বিনীমূল্য, গোপনীয় আইন সংক্রান্ত পরামর্শ প্রাপ্ত করুন

    08001 225 6653এ কল করুন
  • সোমবার থেকে শুক্রবার, সকাল 9 টা থেকে বিকেল 8:00
  • শনিবার, সকাল 9টা থেকে দুফুর 12.30 পর্যন্ত
  • প্রতি মিনিট/4পী’র দর থেকে কল করুন – কিংবা এমন ব্যবস্থা করুন যাতে আমরা আপনাকে ফেরত ফোন করতে পারি

আপনার এলাকাতে একটি আইন সংক্রান্ত পরামর্শদাতা কে খুঁজুন

37. পিতামাতা বা প্যারেন্টের দায়িত্ব (বা প্যারেন্টাল রিস্পন্সিবিলটি ) কী?

এটি একটি আইনি সংজ্ঞা যা নির্ধারণ করে একজন প্যারেন্টের কোনো বাচ্চার প্রতি কী ধরণের দায়িত্ব ও কর্তব্য থাকে| মায়েদের ক্ষেত্রে সবসময় প্যারেন্টাল রিস্পন্সিবিলটি থাকে, কিন্তু পিতাদের ক্ষেত্র আলাদা এবং তা পরিস্থিতির উপর নির্ভর করে|

প্যারেন্টাল রেসপন্সিবিলিটি কী তা আইনে বিস্তৃতভাবে বলা থাকে না, কিন্তু তার মধ্যে পড়ে:

  • বাচ্চার জন্য থাকার ব্যবস্থা করা
  • বাচ্চার সাথে যোগাযোগ থাকা এবং তার সাথে থাকতে পারা
  • বাচ্চার সুরক্ষা করা এবং তাকে যত্ন করা
  • বাচ্চাকে নিয়মের মধ্যে রাখা
  • বাচ্চার শিক্ষার মনোনয়ন এবং ব্যবস্থা করা
  • বাচ্চার ধর্ম নির্ধারণ করা
  • বাচ্চার চিকিত্সার ব্যাপারে সম্মতি দেওয়া
  • বাচ্চার নামকরণ এবং তার নামের পরিবর্তনের ব্যাপারে সম্মতি দেওয়া
  • ইউ-কে-র বাইরে কোনো দেশে যেতে হলে বাচ্চার সাথে যাওয়া এবং বাচ্চার পাকাপাকিভাবে বিদেশে যাওয়ার ব্যাপারে সম্মতি দেওয়া, যদি সে প্রশ্ন ওঠে
  • বাচ্চার জিনিসপত্রের রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব নেওয়া
  • বাচ্চার জন্য যদি দরকার হয় তাহলে গার্ডিয়ান বা তত্ত্বাবধায়ক ঠিক করা
  • বাচ্চার বিষয়ে কোনো গোপনীয় তথ্য জানানোর অনুমতি দেওয়া|

বাচ্চার জন্ম হওয়ার সময় তার পিতামাতা যদি বিবাহিত থেকে থাকেন, অথবা যদি তারা যৌথভাবে কোনো বাচ্চা দত্তক নিয়ে থাকেন, তাহলে তাদের দুজনেরই প্যারেন্টাল রিস্পন্সিবিলটি থাকে| বিবাহবিচ্ছেদ হলে প্যারেন্টাল রিস্পন্সিবিলটি চলে যায় না|

বাচ্চার পিতা ও মাতা যদি অবিবাহিত হন, তাহলে তার পিতা আইনানুগভাবে বাচ্চার দায়িত্ব বা রিস্পন্সিবিলটি পেতে পারেন এর মধ্যে যে কোনো একটি উপায়ে:

  • (1 ডিসেম্বার 2003-এর পরে) বাচ্চার মাতার সঙ্গে একসাথে বাচ্চার জন্মের রেজিস্ট্রেশান বা নথিকরণ করে
  • বাচ্চার মাতার সঙ্গে একমত হয়ে একটি প্যারেন্টাল রিস্পন্সিবিলটি এগ্রিমেন্টের মাধ্যমে
  • কোনো আদালতের জারি করা প্যারেন্টাল রিস্পন্সিবিলটি অর্ডারের মাধ্যমে।

শুধুমাত্র বাচ্চার মাতার সাথে থাকার কারণেই (এমনকি অনেকদিন একসাথে থাকার পরেও) পিতাকে প্যারেন্টাল রিস্পন্সিবিলটি দেওয়া হয় না| পিতা ও মাতা যদি বিবাহিত না হন তাহলে বাচ্চার মাতার যদি মৃত্যু ঘটে তাহলেও প্রকৃতিগত পিতাকে সব ক্ষেত্রে প্যারেন্টাল রিস্পন্সিবিলটি দেওয়া নাও হতে পারে|

প্যারেন্টাল রিস্পন্সিবিলটি পাবার জন্য কোনো পিতা আদালতেও যেতে পারেন| আদালত এই বিষয়গুলি দেখে বিচার করবে:

  • বাচ্চার প্রতি তার পিতা কী পরিমাণ দায়বদ্ধতা দেখাচ্ছেন
  • বাচ্চার সাথে তার পিতার সম্পর্ক কতোটা ঘনিষ্ঠ
  • পিতা কী কারণে বাচ্চার প্যারেন্টাল রিস্পন্সিবিলটি চাইছেন|

আদালত তার পরে আবেদনটি মঞ্জুর অথবা খারিজ করা দেবেন, তবে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই আবেদনটি সফল হবে|

উপরে ফেরত যান